ব্রেকিংঃ

জীবন্তকিংবদন্তী তোফায়েল আহমেদ চাইলে নিরাপদে থাকবে ভোলার ২০লক্ষ মানুষ।।

স্টাফ রিপোটারঃ
প্রিয় নেতা আজ ভোলা দ্বীপের ২২ লক্ষ মানুষ খুবই অসহায়। সবাই আল্লাহর পরে আপনার দিকে তাকিয়ে আছেন। আপনি অসহায় মানুষ গুলোর ত্রাণের ব্যাবস্থাও করেছেন। কিন্তু ভোলার মানুষের জন্য এই মুহুর্তে কোন চিকিৎসা ব্যবস্থা নেই। করোনা রুগীর জন্য ভন্টিলেশন আই সিওতো দুরের কথা কোন চিকিৎসাই নেই ভোলার একমাত্র হাসপাতালে। প্রিয় নেতা আপনি জানেন ভোলা সদর হাসপাতালের জন্য আধুনিক মানের একটি ৭ তলা ভবন নির্মিত হয়েছে। এই ভবন টিতে অক্সিজেনের একটি আধুনিক লাইন রয়েছে। অন্তত এই বিপর্যয়ের মধ্যে আধুনিক মানের এই ভবনটি চালু করে বিচ্ছিন্ন দ্বীপের ২২ লক্ষ অসহায় মানুষকে করোনা ঝুকি থেকে বাচাতে পারেন। প্রিয় নেতা বাবা চাচাদের থেকে শুনেছি মুক্তি যুদ্ধ থেকে শুরু করে বাংলাদেশের সকল ক্রান্তিকালে আপনি ত্রাতা হিসেবে বাব বার অভির্ভুত হয়েছেন। ১৯৭০ সালের বন্যায় ৭৪ এর বিপর্যয়ে আপনিই ছিলেন ভোলা দ্বীপের মানুষের একমাত্র সহায়। প্রিয় নেতা আপনি শুনেছেন এই নতুন করোনা রুগীর প্রকৃত কোন চিকিৎসা ব্যাবস্থা নেই। এই রুগীর প্রচুর শ্বাস কষ্ট হয়। তাই প্রাথমিক ভাবে যদি নতুন ভবনটিতে করা অক্সিজেনের লাইনটি সচল করার ব্যাবস্থা করে দেন তা হলে ভোলা দ্বীপের করোনা রুগীরা প্রাথমিক ভাবে কিছুটা হলেও রক্ষা পেতো। প্রিয় নেতা বিচ্ছিন এই দ্বীপের সাথে সকল জেলার যোগাযোগব্যবস্থা এই মুহুর্তে বন্ধ রয়েছে আপনি যদি ভোলা হাসপাতালে নমুনা সনাক্তকরণের ব্যাবস্থা করে দেন তাতে রুগী গুলো পৃথক করা গেলে এই করোনা বিপর্যয় থেকে আল্লাহর রহমতে বেচে যেতো আপনার প্রতি আজীবন কৃতজ্ঞ ভোলার অসহায় ২২ লক্ষ মানুষ। প্রিয় নেতা মহান আল্লাহ আপনাকে হাজার বছর ভোলার মানুষের সেবা করার সুযোগ দিন।