ব্রেকিংঃ

ভোলার ভেলুমিয়ায় জমির মালিককে কুপিয়ে আহত করেছে ভূমিদস্যু গংরা।।আহত ২

স্টাফ রিপোটার ।।

ভোলার ভেলুমিয়া গাঁজির চরে ভূমিদস্যু ও সন্ত্রাসী বাহিনীর হামলায় নিজের জমি বুজ পেতে জমির কাছে গেলে আগে থেকে উৎপেতে থাকা সন্ত্রাসী বাহিনী দা, বটি,লাঠি সোঠা ও ধারালো অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে প্রকৃত জমির মালিকগনকে জমির কাছে যাওয়া মাত্রই এলোপাথাড়ি কিল ঘুষি ও লাঠি সোঠা দিয়ে মেরে কুপিয়ে  রক্তাক্ত করে ফেলে রেখে যাওযার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
(২৬ ফেব্রুয়ারি) শুক্রুবার সকাল আনুমানিক ৮.৩০ ঘটিকার সময় চরগাঁজির ভাঙ্গা ব্রিজের কাছে গেলে এই ঘটনা ঘটে।
জমির প্রকৃত মালিক চর গাঁজির ৪ নং ওয়াডের বাসিন্দা মৌলবি শাহাজানের ছেলে মামুন গত দুই বছর আগে আলম জমাদারের কাছ থেকে  আড়াই শতাংশ জমি ক্রয় করে।
জমি ক্রয় করার পর থেকে উক্ত জমিটি নামজারি ও পর্চা, রেকর্ড সহ সকল কিছু আমাদের নামে এবং আমরা জমিটি ভোগ দখল করে আসছি।
জমির মালিক মামুন এর ভাই আলামিন জানান,গত কয়েকদিন ধরে বিএনপির কুখাৎত সন্ত্রাসী চর দখলকারি ভূমিদস্যু মৃত জালাল ব্যাপারির ছেলে বিল্লাল ব্যাপারি সহ তার নেতৃত্বে তার ছেলে মনির ও হাসান আরো অজ্ঞাত কয়েকজন সন্ত্রাসী বাহিনী মিলে হঠাৎ করে আমার জমির কাছে গিয়ে আমার জমি দাবি করে এবং আমার জমি থেকে রাতের আধারে   গাঁছ কর্তন করে নিয়ে যায়।
আমি তার খবর শুনে ভোলা থানায় মামলা করি।
এর পরে ও তিনি গাছ কেটে ক্ষ্যান্ত হননী তিনি পূর্বের ন্যায় আজ আমি আমার জমিতে যাওযার পর উৎপেতে থাকা সন্ত্রাসী ভুমিদস্যু বাহিনী নিয়ে আমাদের উপর হামলা চালায় এতে আমরা অনেকে আহত হলে আমাদের কে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করাইয়াছেন স্থানীয়রা।

স্থানীয় নাম না প্রকাশে  অনেকে জানান এই জমি আজ থেকে দুই বছর আগে মামুন জমির যে প্রকৃত মালিক আলম জমাদার তার কাছ থেকে ক্রয় করে মামুন কিন্তু আজ দুই বছর অতিবাহিত হওয়ার পর বিল্লাল জমির কাছে জমি দাবি করে বসে এবং উক্ত জমিতে ক্রয়কৃত মালিক মামুন গংরা জমির কাছে গেলে তাদের কে মেরে রক্তাক্ত করে বিল্লাল গংরা।

এব্যাপারে অভিযুক্ত বিল্লাল ব্যাপারির সাথে কথা বলতে গেলে তাকে ঘটনাস্থলে গিয়েও পাওয়া যাইনী।
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সালাম মাস্টার জানান, আমাকে মারামারির বিষয়টি অবগত করেছেন স্থানীয় একজন পরে আহত মামুন এর ভাই আমাকে ফোনে জানালে আমি বিষয়টি নিশ্চিত হই।
আমি তাদের কে আশাস্ত করেছি আপনিরা সুস্থ্য হয়ে আসেন আমি ঘটনাটি পুরোপুরি জেনে সঠিক উপযুক্ত বিচার করে সমাধান করে দিবো।
আহত মামুন এর ভাই আলামিন জানান, আমরা ভোলা থানায় মামলা করবো প্রস্তুতি নিচ্ছি।
ভোলা সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি এনায়েত হোসেন জানান,এই ব্যাপারে অভিযোগ পাইনী হাতে পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্তা গ্রহন করবো।