ব্রেকিংঃ

ভোলায় আসন্ন কাউন্সিল উপলক্ষে জেলা আ’লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত।।

এম রহমান রুবেল।।

ভোলা জেলা আ’লীগের আসন্ন ত্রি-বার্ষিকী সম্মেলন ১১ জুন ২০২২ উপলক্ষে জেলা আ’লীগের বর্ধিত সভায় কাউন্সিলর ও ডেলিকেট ভোটারদের শোক নাম পাশ হয়েছে।

রবিবার সকালে জেলা আ’লীগ কার্যালয়ে আসন্ন কাউন্সিল উপলক্ষে ডেলিগেট ও কাউন্সিলরদের নিয়ে এ বর্ধিত সভা অনুষ্টিত হয়।
উক্ত সভায় জেলা আ’লীগের সভাপতি ফজলুল কাদের মজনু মোল্লাহর সভাপতিত্বে বর্ধিত সভায় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক ও জেলা পরিষদ প্রশাসক আবদুল মমিন টুলু, জেলা আ’লীগের সহ সভাপতি হামিদুল হক বাহালুল মোল্লাহ, সহ সভাপতি দোস্ত মাহমুদ,এডভোকেট জুলফিকার আহমেদ, এডভোকেট আশ্রাফ হোসেন লাভু, জেলা আ’লীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক জহুরুল ইসলাম নকিব, এনামুল হক আরজু, জেল আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আসন্ন কাউন্সিলে সম্ভব্য সাধারন সম্পাদক পদ প্রার্থী মইনুল হোসেন বিপ্লব, জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সফিকুল ইসলাম, সাংগঠনিক ও উপজেলা পরিষদের ভাইস আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইউনুছ, জেলা আ’লীগের ত্রান ও সমাজ কল্যান বিষয়ক সম্পাদক মোঃ সফিকুল ইসলাম  প্রমুখ।
এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক নজুরুল ইসলাম গোলদার,যুগ্ন সাধারন সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল ইসলাম।

এসময় ১১ জুন ২০২২ আসন্ন কাউন্সিল উপলক্ষে ভোলা জেলা আ’লীগের বর্ধিত সভায় ভোলা জেলার ৭ উপজেলা ডেলিকেট ও কাউন্সিলদের নিয়ে আলোচনা সভা করেন এবং বিভিন্ন দিকনির্দেশনামুলক নির্দেশনা প্রদান করেন জেলা আ’লীগের নেতৃবৃন্দরা।

আসন্ন জেলা আ’লীগের কাউন্সিলে মোট কাউন্সিলর সংখ্যা হলো ৩৫০ জন আর ডেলিকেট হলো ১৪০০ জন বলে নিশ্চিত করেছেন উপজেলা আ’লীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম।

তিনি প্রতিবেদক কে জানান এবারের সম্মেলন হবে কাউন্সিল ও ডেলিকেটের মাধ্যামে কে হবেন সভাপতি সাধারন সম্পাদক একমাত্র ভোটারেরাই জানেন আর জানেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও ভোলায় কাউন্সিল উপলক্ষে আগত দায়িত্ব প্রাপ্ত কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দেরা।

এবারের কাউন্সিলে কেমন নেতৃত্ব চাচ্ছেন তৃনমুল নেতা কর্মীরা এবিষয়ে জেলা আ’লীগের ত্রান ও সমাজ কল্যান বিষয়ক সম্পাদক সফিকুল ইসলাম এর সাথে কথা হলে তিনি জানান এবারের কাউন্সিল হবে ভোলাবাসির জন্য একটি চমক কারন ভোটারদের ভোটে যখন নেতা নির্বাচিত করবেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ সভাপতি জননেত্রী শেখ হাসিনা ও ভোলার দায়িত্ব প্রাপ্ত কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দরা তখন আমি জেলা আ’লীগের একজন সদস্য হিসেবে আমার দাবি থাকবে যারা এতোদিন কর্মী মুল্যায়নে ব্যার্থ এবং নেতা কর্মীদের আপদ বিপদে খবর রাখেনা এমন কাউকে চান না কাউন্সিলর ও ডেলিকেট এবং তৃনমুল নেতা কর্মীরা।
তৃনমুল নেতা কর্মীদের দাবি এক জন নেতা এক পথে একাধিক বার থাকার ধরকার নেই যাদের দ্বারা কর্মীর ভাগ্য উন্নয়ন হয় না তারা জেলা আ’লীগের থাকার চেয়ে না থাকা ভালো।
তৃনমুল নেতা কর্মীদের দাবি এবারের কাউন্সিল হল ভোলাবাসির জন্য একটি চমক তারা চায় নতুন নেতৃত্ব।

জেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনে এমন কেউ আসুক তরুন মেধাবী শিক্ষিত যাকে কর্মীরা সব সময় আপদ বিপদে পাশে পায় এবং কর্মীদের ভাগ্যউযন্ন কাজ করতে পারে।