ব্রেকিংঃ

আওয়ামী লীগ প্রতিশোধ ও প্রতিহিংসার রাজনীতি করেনাঃশ্রমিক লীগের সম্মেলনে তোফায়েল আহমেদ।।

আওয়ামীলীগ সরকারের আমলে মানুষ খুব শান্তিতে আছে শ্রমিকলীগের ত্রি-বার্ষীক সম্মেলনে তোফায়েল আহমেদ

এম রহমান রুবেল ॥ ভোলায় শ্রমিকলীগের ত্রি-বার্ষীক সম্মেলনে আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য, সাবেক মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এমপি বলেছেন, বাংলাদেশে আর কখনো কোন দিন তত্বাবধায়ক সরকার হবে না। এটি স্বপ্ন দেখা মানে বোকার স্বর্গে বসবাস করা। বক্তৃতার জন্য যদি কোন নোবেল প্রাইজ থাকতো তাহলে মির্জা ফখরুলকে তার মিথ্যাচারের জন্য তা দেওয়া হতো।
তিনি বলেন, বিএনপি যখনই সুযোগ পেয়েছে ঠিক তখনই আওয়ামী লীগের উপর অত্যাচার নির্যাতন জুলুম করেছে। আওয়ামী লীগ প্রতিশোধ ও প্রতিহিংসার রাজনীতি করেনা। আওয়ামী লীগ নেতার দল না, আওয়ামী লীগ হলো কর্মীর দল। আপনারা এখন থেকে প্রতিটি ঘরে ঘরে আওয়ামী লীগের দুর্গ গড়ে তুলুন। মঙ্গবার (১৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে জেলা পরিষদ হল রুমে জেলা শ্রমিকলীগের ত্রি-বার্ষিকী সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ সব কথা বলে তোফায়েল আহমেদ।
সাবেক মন্ত্রী বলেন, আমার দুটি স্বপ্ন; একটি হলো ভোলাকে নদী ভাঙ্গা থেকে রক্ষা করা, সেটা আমি করতে সক্ষম হয়েছি। আর দ্বিতীয়টি হলো ভোলাকে বরিশালের সাথে সংযুক্ত করা। কিন্তু আমি যদি জীবিত থাকি আর না থাকি ভোলা-বরিশাল ব্রীজ হবে ইনশাআল্লাহ।
শ্রমিকলীগের ত্রি বার্ষিকী সম্মেলনে সকল সহযোগী সংগঠনকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেন, প্রত্যেক ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডে শক্তিশালী আওয়ামী লীগ গড়ে তুলতে হবে। যাতে ডাক দিলে হাজার-হাজার নেতা কর্মী ও জনগন উপস্থিত হয়। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভালোভাবে দেশকে পরিচালিত করছেন। তিনি গ্রামকে শহরে রুপান্তর করেছেন। বিশ্বের কাছে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হয়েছে। আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে মানুষ খুবই শান্তিতে আছে। আওয়ামী লীগ সরকারের উপর সর্বস্তরের মানুষ অনেক খুশি।
জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলমের সভাপতিত্বে এবং জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবিদুল আলম এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব কে এম আজম খশরু। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভোলা-৩ (লালমোহন-তজুমদ্দিন) আসনের সংসদ সদস্য নুরুনন্নবী চৌধুরী শাওন, জেলা আ’লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও জেলা পরিষদ প্রশাসক আব্দুল মমিন টুলু, জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মঈনুল হোসেন বিপ্লব, কেন্দ্রীয় শ্রমিকলীগের সহ-সভাপতি শাহাবুদ্দিন, মোঃ মহসিন আলী, কেন্দ্রীয় শ্রমিকলীগের প্রচার সম্পাদক মেহেদী হাসান, জেলা আ’লীগের সাবেক সহ-সভাপতি দোস্ত মাহমুদ, জেলা আ’লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারন সম্পাদক জহুরুল ইসলাম নকিব প্রমুখ।
ভোলা জেলা শ্রমিকলীগের ত্রি-বার্ষীক সম্মেলনের ২য় অধিবেশনে আগামী ৩ বছরের জন্য কমিটির নাম ঘোষণা করা হয়। এতে জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি হিসেবে হারুন হাওলাদর ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে মোঃ ফারুক কে মনোনীত করা হয়।